শিরোনামঃ

জলে বসে কুমিরের সাথে লড়াই করার ফল ভালো হয় না


স্টাফ রিপোর্টার :
চাউল বিতরণে অনিয়ম করার অভিযোগে এলএসডির বিরুদ্ধে মামলায় করায় ও চাহিদা মতো টন প্রতি অর্থ না দেওয়ায় রাজবাড়ী সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামান খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলারকে মামলা প্রত্যাহারের হুমকি দিয়ে বলেছেন, জলে বসে কুমিরের সাথে লড়াই করার ফল ভালো হয় না।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন রাজবাড়ী সদর উপজেলার খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলার মনোয়ার হোসেন।
ডিলার মনোয়ার হোসেন মনো বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে হতদরিদ্রদের মধ্যে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় সরকার নির্ধারিত সূলভ মূল্যে কার্ডের মাধ্যমে খাদ্য শষ্য বিতরণে রাজবাড়ী সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামান ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাফায়েত হোসেন অনিয়মের রাজত্ব গড়ে তুলেছেন। প্রতিটন চালে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামানকে ১০০ টাকা করে দিতে হবে। তার ৫০০ কার্ডের বিপরীতে প্রতি চালানে ১হাজার ৫শত টাকা দাবী করেন।
তিনি বলেন, অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামান নিজেকে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা বলে পরিচয় দেন এবং ডিলারশীপ লাইসেন্স কেড়ে নেওয়ার হুমকি দেন। ব্যবসা করতে হলে তিনি যা বলবেন তা মেনে নিতে হবে, অন্যথায় ব্যবসা বন্ধ করতে যা যা করার তাই করবেন।
তিনি আরও বলেন, খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় চাল বিতরণেকালে অনিয়ম করায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাফায়েত হোসেনের বিরুদ্ধে ২০২২ সালের ১৬ জুন রাজবাড়ী ১নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে হাইকোর্টে (হাইকোর্ট মামলা নং ১৫০০৭৩১/২৪) চলমান অবস্থায় রয়েছে।
ডিলার মনোয়ার হোসেন মনো বলেন, গত ১১ মার্চ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামানের নিকট ডিও আনতে গেলে তিনি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাফায়েত হোসেনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার করার জন্য নানা ভাবে চাপ দেন এবং আরও হুমকি দেন যে, জলে বসে কুমিরের সাথে লড়াই করার ফল কোনদিনই ভালো হয় না। পরে স্বাক্ষর বিহীন ডিও প্রদান করেন। পরে দুজন আমার ঘরে এসে নানা ধরণের হুমকিসহ ঘর সিলগালা করার হুমকি দিয়ে চলে যান। বিষয়টি নিরপেক্ষ তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।
রাজবাড়ী সদর উপজেলার খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (খাদ্য পরিদর্শক) শাফায়েত হোসেন বলেন, আমার মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।
রাজবাড়ী সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক তারিকুজ্জামান তার বিরুদ্ধে দাখিলকৃত অভিযোগ মিথ্যা দাবী করে বলেন, তার চাল দেওয়ার অনিয়মের বিষয়ে রিপোর্ট করায় তিনি এ অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেখবেন বলেও প্রকাশ করেন।
রাজবাড়ী জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ আবু কাউছার বলেন, একজন ডিলার অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগটি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অন্যান্য খবর পড়ুন