শিরোনামঃ

রাজবাড়ীতে শাশুড়ীকে জবাই করে হত্যার দায়ে পুত্রবধু ও প্রেমিকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড


সোহেল রানা :
রাজবাড়ীতে হাজেরা বেগম নামে এক গৃহবধুকে গলা কেটে হত্যার দায়ে পুত্রবধু স্বপ্না বেগম ও পরকীয়া প্রেমিক মোঃ সোহেল মিয়া নামে ২জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেছে। স্বপ্না বেগম রাজবাড়ী সদর উপজেলার বারবাকপুর (পশ্চিমপাড়া) গ্রামের মোঃ হাফিজুর রহমানের স্ত্রী ও মোঃ সোহেল মিয়া সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের কোমরপাড়া গ্রামের মোঃ হোসেন মিয়ার ছেলে। এসময় রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলাদীপুর গ্রামের ইসমাইল শেখের ছেলে কবির শেখের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় অব্যাহতি প্রদান করেছেন।
বৃহস্পতিবার দুপুর দেড় টার সময় রাজবাড়ী সিনিয়র দায়রা জজ মোসাম্মৎ জাকিয়া পারভিন এ রায় প্রদান করেন।
মামলার অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, ২০১৮ সালের ১৬ আগস্ট রাত দেড় টার দিকে পুত্রবধু স্বপ্না আক্তারের চিৎকারে আশপাশের লোকজন দ্রুত ঘরে গিয়ে দেখতে পান হাজেরা বেগমের গলাকাটা ও রক্তাক্ত অবস্থায় বিছানায় পড়ে আছে। পুত্রবধু স্বপ্না আক্তারের শরীলে ধারালো অস্ত্রের জখম। তাকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করেন। এ ব্যাপারে নিহত হাজেরা বেগমের স্বামী তমিজ উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত পূর্বক থানা পুলিশ ৩জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীর্ট দাখিল করেন।
রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাড. উজির আলী শেখ বলেন, পরকীয়া প্রেমিকের সাথে রাতে শাশুরী হাজেরা বেগম দেখে ফেলায় গলা কেটে হত্যা করে। এ হত্যার দায়ে পুত্রবধু স্বপ্না বেগম ও মোঃ সোহেল মিয়া নামে ২জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেছে। এসময় কবির শেখের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় অব্যাহতি প্রদান করেছেন। রায়ে বাদীপক্ষ সন্তোষ্ট প্রকাশ করেছেন।

অন্যান্য খবর পড়ুন